কেন ব্লগ লিখা উচিত? ব্লগ লিখার সুফল কি?

104
Blank notepad over laptop and coffee cup

প্রযুক্তি খুব দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে এবং একই সাথে সবার হাতের নাগালে চলে আসছে। আমি প্রথম মোবাইল পেয়েছিলাম এইচএসসি তে এসে। আমার আব্বু-আম্মু মোবাইল পেয়েছে আরো অনেক পরে। আবার আব্বু প্রথম স্মার্টফোন ব্যবহার হাতে পেয়েছে প্রায় ৫০ বছর বয়সে এসে মাত্র ৫ মাস আগে। আমার ছোট ভাই ট্যাব হাতে পেয়েছে ক্লাস সিক্সে। অনেকেই জন্মের সাথে সাথে পাচ্ছে।

কথাগুলো একই সাথে সত্যি ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের ক্ষেত্রেও। প্রযুক্তির এই বিস্তারের সুফলই বেশি যদিনা বেশিরভাগ সময় ফেইসবুক বা অন্য সামাজিক যোগাযোগের সাইটে কেটে যায়। কিন্তু কঠিন সত্যি এই যে আমাদের বেশিরভাগেরই সময় এখন ফেইসবুকে কাটে।

যাই হোক আমার এই লিখার ইচ্ছে ওইসব নিয়ে আলোচনা করা না। আমার আলোচনার বিষয়বস্তু ব্লগ লিখা বা ব্লগে লিখা। সেই লিখা বাংলা বা ইংরেজি যে কোন ভাষাতেই হতে পারে। আমার মতে ভার্সিটি-পড়ুয়া যাদের কম্পিউটার আছে এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করে তাদের সবারই ইংরেজি ব্লগ লিখা উচিত। এই ব্লগ লিখার সুফল অনেক। দিনে ১ ঘণ্টা ব্লগের পিছনে সময় দেয়া হলে ওটা থেকে হতে পারে চমৎকার কিছু।

ব্লগ লিখার কিছু সুফল:
১. ব্লগ লিখতে হলে অনেক কিছু জানতে হয়। আর জানার জন্য পড়তে হয়। ফলে আপনার জানার পরিমাণ, পরিধি কিংবা ইচ্ছে তিনটাই বাড়তে থাকবে।

২. ইংরেজি ব্লগ লিখলে আস্তে আস্তে ইংরেজির উপর দক্ষতা বাড়তে থাকে। ইংরেজি উপরে দক্ষতা বাড়লে সুফল কি এটা বলে দেয়ার দরকার নেই আশা করি।

৩. ব্লগের সাথে জড়িত থাকলে নতুন প্রযুক্তি, নতুন আবিষ্কার কিংবা সমসাময়িক সব কিছুর সম্পর্কে একটা ধারণা গড়ে উঠে।

৪. চিন্তা করার ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সত্যি বলতে গেলে জ্ঞান বাড়লে চিন্তা করার ক্ষমতা বাড়বেই।

৫. যদি নিজের কোন ব্লগ হয়, মানে নিজের কোন ওয়েবসাইটে কোন কিছু নিয়ে লিখতে থাকেন তাহলে একইসাথে উপরের সব সুফল পাওয়া ছাড়াও আরো কিছু বাড়তি সুফল থাকে। যেমন:
–> এটা আপনার একটা সম্পদ হিসেবে গড়ে উঠে আস্তে আস্তে।
–> একটা সময় এর থেকে আয় করার সুযোগও আসে। এই আয়টা নেহাতেই কম নয়। দিনে ১ ঘণ্টা করে সময় দেয়া একটা ব্লগ থেকে ১-২ বছর পরে খুব সহজেই মাসে ৪০০০-৫০০০টাকা আয় করা সম্ভব। এটা একটা মিনিমাম হিসেব। সত্যি বলতে গেলে মাসে ৪০০০০-৫০০০০ হাজারও আয় করা সম্ভব।

** আরও অনেক সুফল পাওয়া যায় যেগুলো এই লিখাতে না আসলেও হবে আপাতত।

ভার্সিটি ভর্তি হওয়ার পরে আমাদের প্রচুর সময় থাকে। পাগলের মত অনেকেই টিউশনি খুঁজে। অনেকেই আরো নানান কাজের সাথে যুক্ত হয়। কিন্তু এর কোনটাই আমার মতে ব্লগ লিখার মত সুফল নিয়ে আসে না। কেননা অন্যান্য বেশিরভাগ কাজই আপনি কাজ থামানোর সাথে সাথে আর কোন কিছু আপনাকে দিবে না। কিন্তু একটা ব্লগ আপনি অনেকদিন কাজ না করলেও আপনাকে মিনিমাম একটা আয় দিতে পারবে। আর এর সাথে অন্য সুফলগুলোতো আছেই। তাই যে যাই করুক না কেন যদি সুযোগ থাকে অবশ্যই ব্লগ লিখা শুরু করতে পারে। ফ্রিল্যান্সিং করলেও ব্লগ লিখা উচিত বলে আমি মনে করি।

তাই সুযোগ থাকলেই শুরু হয়ে যাক লিখালিখি। কোন প্রশ্ন বা সহযোগীতা থাকলে যোগাযোগ করুন বা মন্তব্য করুন। 🙂

Comments

comments