সহজেই ব্যাকলিংক কিভাবে করা যায়?

362

 

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর ব্যাকলিংক কিভাবে করবেন এটা নিয়ে পোস্টের পর অনেকেই এটা সম্পর্কে আরও জানতে চেয়েছেন। বিশেষ করে কিভাবে খুঁজে পাবো যে কোথায় ব্যাকলিংক করা যাবে। কেননা দেখা যাচ্ছে যে ভালো পেইজ র‍্যাঙ্কের সাইটে মন্তব্যের সিস্টেম অপেন থাকে না। আবার থাকলেও দেখা যায় যে তা মডারেশনে রাখা হয়। তাই সবমিলিয়ে কোয়ালিটি ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করা সম্ভব?

সত্যি কথা বলতে গেলে এর সহজ কোন উত্তর আমারও জানা নেই।ভালো ব্যাকলিংক করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং একই সাথে এটা খুব চ্যালেঞ্জিং ও।
যাই হোক আমি আমার কিছু মতামত দিয়ে যাই এই ব্যাপারে। এগুলো অভিজ্ঞ কোন মতামত হিসেবে না নিলেই ভালো হয়।

১. ইংরেজি ভালো পেইজ র‍্যাঙ্কের সাইটে পোস্ট করাটা কঠিন। কিন্তু আমাদের দেশে অনেক বাংলা সাইট আছে (সামু, টেকটিউনস আরও অন্যান্য ব্লগ) যেগুলোতে খুব সহজেই লিখা যায়। ওখানে আপনি কোন একটা আর্টিকেল লিখে তাতে আপনার সাইটের ব্যাকলিংক করতে পারেন। যদি সত্যিকারের ইনফরমেটিভ হয় না তাহলে আমার মনে হয় এটাকে কেউ খারাপভাবে নিবে। তবে খেয়াল রাখবেন যাতে স্পামিং না হয়।

২. ব্লগস্পটে করা নানান ভালো সাইট খুঁজে বের করা। ব্লগস্পট বা গুগল আইডি দিয়ে সহজেই এইসব জায়গায় মন্তব্য করা যায়। অনেক সাইটেই অটো এপ্রুভাল থাকে।

৩. ভালো ব্লগসাইট না পাওয়া গেলেও ফোরাম সাইট কিন্তু খুব সহজেই পাওয়া যায়। ওখানে আইডি খোলা যেতে পারে এবং সিগনেচার হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। Please give a search in google how to make backlink using forum signature.
৪. নেটে সার্চ দিলে কিছু কিছু সাইটে Do-follow এবং মন্তব্য অটো এপ্রুভ হয় এমন সাইটের লিস্ট পাওয়া যায়। যদিও সব ঠিক থাকে না। তবে কাজ হয়ে যেতে পারে। Give a search in google as, High PR comment auto approve site list.
৫. Stack overflow, WordPress এইরকমের যে সাইটগুলোতে সাপোর্ট পাওয়া যায় ওখানে সাইটের লিংক করা যেতে পারে।

এইবার একটু বেশি কষ্টের সিস্টেম বলি।
৬. আপনি যে কিওয়ার্ডের উপরে সাইটের লিংক করবেন ওই কিওয়ার্ড দিয়ে সার্চ দিন। যে সাইটগুলো প্রথমে আসে ওগুলোতে মন্তব্য করা যায় কিনা বা আর্টিকেল লিখা যায় কিনা দেখুন। যদি করা যায় তাহলে করতে থাকুন। যেগুলোতে দেখবেন অটো-এপ্রুভ হয় ওগুলো সংরক্ষণ করুন। কেননা সামনে আরোও সাইটের লিংক করতে পারবেন।
৭. যে সব সাইটে মন্তব্য অটো এপ্রুভ হয় না ওইসব সাইটে মন্তব্য করার পরে মাঝে মাঝে খেয়াল রাখুন যে এপ্রুভ হলো কিনা। আর যদি আপনার আগে কারও মন্তব্য এপ্রুভ হয়ে থাকে তাহলে তা কেমন ছিল তা দেখে ওইরকম মন্তব্যের চেষ্টা করুন।

সমসময় চেষ্টা করবেন মন্তব্য যাতে আলোচনা বা সমালোচনা-মূলক হয়ে থাকে। আর একটা কথা বিভিন্ন সাইটে ভিন্ন নামে বা ইমেইলে মন্তব্য করবেন।
গুগলে সার্চ দিলে আরও অনেক উপায় পাবেন লিংক করার। তবে লিস্টিং সাইটগুলো থেকে বিরত থাকবেন। সবসময় চেষ্টা করবেন লিংক যাতে Natural types এর হয়।

বি.দ্র.: এই একটা টপিকে আমি খুব দক্ষ কেউ নই। আমি অনেক আগে থেকে নানান ব্লগে লিখতাম। তাই অনেক জায়গায় আমি সহজে লিখতে বা মন্তব্য করতে পারি যা অটো এপ্রুভ হয়। কিন্তু নতুনদের জন্য এটা সমস্যা। দেখা যায় যে অনেক সাইটই নতুনদের আইডি খুলতে বা মন্তব্য করতে দিচ্ছে না। তাই আস্তে আস্তে ধৈর্য ধরে এটা করতে থাকুন। ৫-৬ মাস কাজ করার পরে দেখবেন অনেক লিস্ট হয়ে গেছে আপনার যেখানে সহজেই ব্যাকলিংক করা যায়। এরপর কিন্তু আপনার জন্য এই কাজটা খুব সহজ হয়ে যাবে।
ধন্যবাদ সবাইকে।

Comments

comments

2 COMMENTS

  1. Thanks for your informative news . I always visit your site for archive knowledge . I look forward to more post from your site .

Comments are closed.